এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা কর

play icon Listen to this article

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

সম্প্রতি তােমার বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

২১. ০১. ২১
প্রধান শিক্ষক
‘ক’ উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা।


জনাব,
আপনার পত্র নং- ০৫/২০২১ তারিখ-১৬/০১/২১ অনুযায়ী আদিষ্ট হয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা সংবলিত প্রতিবেদন আপনার সদয় অবগতির জন্য উপস্থাপন করছি।

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা- ২০২১


প্রতি বছরের মতাে এবারও এসএসসি-২০২১ এর পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনার আয়ােজন করা হয়েছিল ২১ জানুয়ারি, ২০২১। স্কুল ভবন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সংবর্ধনায় প্রধান অতিথি ছিলেন এ স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক জনাব আজমল হােসাইন। সভাপতিত্ব করেছেন নবাগত প্রধান শিক্ষক সুসাহিত্যিক জনাব দিলওয়ার হাসান।

অনুষ্ঠান উপস্থাপন করেছে দশম শ্রেণির ছাত্র রাহুল রােজারিও। দশম শ্রেণির- ছাত্রছাত্রীদের সুন্দর ও সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনায় এবারের সাজসজ্জা ও আসন বিন্যাসে ব্যতিক্রমের ছাপ ছিল স্পষ্ট। সবাই চমৎকৃত হয়েছেন। দুই পর্বে বিভক্ত অনুষ্ঠানের প্রথমে ছিল আলােচনা ও নির্দেশনা এবং পরে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মধ্যাহ্ন ভােজন।

সকাল ১০-০৫ মিনিটে কোরান তেলাওয়াত ও বাংলা তরজমার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য দেন সহকারী শিক্ষক সুধীর রঞ্জন বসাক। নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন বিজ্ঞান বিভাগের শ্রেণিশিক্ষক জনাব আনােয়ার হােসেন ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শ্রেণিশিক্ষক জনাব জাকির আহমদ। এরপর দশম শ্রেণির ছাত্র রাজিব আহসান পরীক্ষার্থী ভাইদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করে। এর জবাবে পরীক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে চমৎকার বক্তব্য প্রদান করে তাহসিনা মাের্শেদা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তাঁর মূল্যবান বক্তব্যে স্কুলের ঐতিহ্য ও সুনামের কথা উল্লেখ করে তা উত্তরােত্তর বৃদ্ধি করার ওপর গুরুত্ব আরােপ করেন। এরপর তিনি পরীক্ষার্থীদের হাতে উপহারের প্যাকেট তুলে দিয়ে শুভকামনা ব্যক্ত করেন।

সভাপতি মহােদয় এ স্কুলের জন্য প্রধান অতিথির অবদানের কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে তুলে ধরে তার সুন্দর জীবন কামনা করেন এবং তার কর্মজীবন অনুসরণ করে সুন্দর জীবন গড়ার জন্য শিক্ষার্থীদের অনুপ্রাণিত করেন। অনুষ্ঠানের উপস্থাপক প্রধান অতিথি, সভাপতি ও আলােচকদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে প্রথম পর্বের সমাপ্তি ঘােষণা করেন এবং দশ মিনিট বিরতির অনুমতি চেয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভােগের জন্য সাদর আমন্ত্রণ জানান।

সােনিয়া সাথির উপস্থাপনায় শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। প্রথমেই সমবেত কণ্ঠে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আনন্দলােকে মঙ্গলালােকে আবৃত্তি, নজরুলগীতি, কৌতুক, দেশাত্ববোধক গান, নৃত্য, লােকগীতি, বাঁশি ও বেহালার সুরমূর্ছণা। উপস্থিত সবাই মন্ত্রমু্গ্ধ হয়ে উপভােগ করেছে এ মনােজ্ঞ অনুষ্ঠান। এরপর মধ্যাহ্য ভােজনে রসনা তৃপ্তির পালা। রান্না এবং পরিবেশনের আন্তরিকতায় সবাই তৃপ্ত ও সম্তুষ্ট হয়েছে।

তাহসিমুল আশরাফ
প্রতিবেদক
দশম শ্রেণি, বিজ্ঞান শাখা।


আরও কয়েকটি প্রতিবেদনঃ

What’s your Reaction?
+1
14
+1
18
+1
4
+1
6
+1
0
+1
0

আপনার মতামত জানানঃ