বন্যার পর তােমার এলাকায় গৃহীত পুনর্বাসন কাজ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন রচনা কর

play icon Listen to this article

বন্যার পর তােমার এলাকায় গৃহীত পুনর্বাসন কাজ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।


অথবা, মনে কর, তােমার নাম নিলয়। তােমার গ্রামের বাড়ি রতনপুর। সাম্প্রতিক বন্যায় তােমার এলাকা খুব ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রন্ত জনজীবনের বিবরণ দিয়ে দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশের উপযােগী একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

প্রতিবেদকের নাম: হামিদ আলী
প্রতিবেদনের শিরােনাম: বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসন সম্পর্কে প্রতিবেদন
স্থান: সুখারামপুর, নােয়াখালী
তারিখ: ১২ জুলাই ২০১৯

নােয়াখালি জেলার সুধারাম উপজেলার অন্তর্গত নয় হাজার অধিবাসী অধ্যুষিত নন্দীপুর আমার এলাকা। অত্র এলাকায় বন্যা পরবর্তী যে সকল পুনর্বাসন মূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে সে সম্পর্কে নিম্নোত্ত প্রতিবেদন পেশ করা হল-

এবারের বন্যায় নন্দীপুর এলাকার ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। ভেঙে গেছে ঘরবাড়ি, ডুবে গেছে টিউবওয়েল, নষ্ট হয়েছে খেতের ফসল। মানুষেরা হয়েছে গৃহহীন, খাদ্যহীন ও নানা রােগে আক্রান্ত। তবে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে পুনর্বাসন কাজ শুরু হয়েছে। সরবরাহ করা হচ্ছে চিড়া, মুড়ি, গুড়, বিস্কিট সহ অন্যান্য শুকনাে খাবার। এ খাবার পর্যাপ্ত না হলেও বেশ উপকৃত হচ্ছে বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষ। বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হচ্ছে এবং ডুবে যাওয়া পুরাতন নলকুপগুলাে মেরামত করা হচ্ছে। সরবরাহ করা হচ্ছে কাপড়। এক্ষেত্রে ধনাঢ্য ব্যক্তি ও কাপড় ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসছে।

চিকিৎসার জন্য খােলা হয়েছে ১০টি অস্থায়ী চিকিৎসা কেন্দ্র। যাদের গৃহসরঞ্জামাদি একেবারে বন্যার জলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের জন্য ন্যূনতম পরিমাণে সরঞ্জামাদি সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে তা প্রয়ােজনের তুলনায় নিতান্ত অপ্রতুল। এখন কৃষক ও ব্যবসায়ীদের জন্য পুনর্বাসন প্রকল্পের আওতায় সুদমুক্ত ও স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ প্রদান অত্যাবশ্যকিয়। এ ব্যাপারে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদেরকে ব্যাপকভাবে এগিয়ে আসা উচিত।

সবশেষে বলা যায়, আমার এলাকায় বন্যা পরবর্তী পুনর্বাসন কাজে সরকারি ও বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবক দল আপ্রাণ চেস্টা করে জনগণের দুর্ভোগ লাঘবের চেষ্টা করেছে।


হামিদ আলী
প্রতিবেদক

What’s your Reaction?
+1
4
+1
11
+1
4
+1
1
+1
0
+1
0

আপনার মতামত জানানঃ

সাবস্ক্রাইব করুন...    OK No thanks