ভাব-সম্পারণঃ সকলের তরে সকলে আমরা

play icon Listen to this article

সকলের তরে সকলে আমরা প্রত্যেকে আমরা পরের তরে

ভাব-সম্পারণঃ জীবনকে যখন অপরের জন্য বিলিয়ে দেওয়া হয়, এ জীবন তখনই সার্থক হয়। মানুষ সুখের পিয়াসী। পৃথিবীতে সে সুখী হতে চায়। তার সমস্ত প্রয়াস, সমস্ত সাধনা সুখেরই জন্য; কিন্তু সে সুখ প্রকৃত সুখ নয়। তাই দেখা যায় যে, আত্মসুখ সন্ধানী মানুষ দেহসর্বস্ব পশুতে পরিণত হয়। কেবল নিজের সুখের জন্য লালায়িত মানুষ সুখ পায় না।

স্বার্থপরতার চার দেয়ালের মধ্যে নেই প্রকৃত সুখের সন্ধান। নিজের চারদিকে স্বার্থপরতার এমন কঠোর আবরণ তৈরি করে তার মধ্যে বাস করলে বাইরের বিশাল বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকতে হয়। কেবল ক্ষুদ্র আমিই ’ এ পৃথিবীর সব নয়। বাইরে রয়েছে মানুষের সমাজ, রয়েছে মানুষের বৃহৎ পৃথিবী। তাদের বাদ দিয়ে কিংবা তাদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে আমরা বাঁচতে পারি না। বলা হয়


“ স্বার্থমগ্ন যেজন, বিমুখ
বৃহৎ জগৎ হতে, সে কখনাে শেখেনি বাচিতে।”


আমরা সামাজিক জীব। সমাজবদ্ধ হয়েই আমরা মিলে মিশে বসবাস করছি। এ পৃথিবীতে এককভাবে কেউ আমরা পরিপূর্ণ নই। প্রতিটি মানুষ পরস্পর নির্ভরশীল। জীবনকে গতিময়, সুন্দর ও সার্থক করে গড়ে তােলার জন্য অপরের সাহায্য অপরিহার্য। কিন্তু আমাদের নিকট ব্যক্তিস্বার্থই সবার ঊর্ধ্বে। অন্যের সুখ-দুঃখের অংশীদার হতে আমরা চাই না। মানুষ সামাজিক জীব, সকলের মঙ্গল পরস্পর অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত।

একক ভাবে কেউ তা কামনা করতে পারে না। এ পৃথিবীতে মহৎ ও সজ্জন ব্যক্তিরা সদা পরহিতে আত্মদান করে গেছেন। এভাবেই তাঁরা হয়েছেন স্মরণীয় ও বরণীয়। যদি অপরের সুখ-দুঃখের কথা চিন্তা করে মানুষ কেবল নিজের সুখ সুবিধার জন্য সর্বশক্তি নিয়ােগ করে তবে কারও মঙ্গল হতে পারে না। অপরের মঙ্গল করার জন্য ত্যাগ স্বীকার করতে হয়। ত্যাগই আজ পৃথিবীকে এমন সুন্দর ও সুখের করে তুলেছে।

এ পৃথিবীতে প্রত্যেক মহৎ ব্যক্তিই পরের উপকারের জন্য জীবন উৎসর্গ করে গেছেন। পশুরাই কেবল নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে। মানুষ পশুর মতো স্বার্থপর নয়। নিজের স্বার্থের কথা না ভেবে পরের মঙ্গল চিন্তায় জীবন উৎসর্গ করাই প্রতিটি মানুষের কর্তব্য। বস্তুত অন্যের মঙ্গল কামনার মধ্যে নিজেরও কল্যাণ নিহিত। আমি যদি অন্যের মাল চাই, সেও আমার মঙ্গল চাইবে।

এভাবে পারস্পরিক সহমর্মিতা দ্বারা আমরা শান্তির পৃথিবী গড়তে পারি। অপরের হাসি-কান্না, আনন্দ-বেদনার শরীক হওয়াই তাে মনুষ্যত্বের পরিচয় এবং এতেই পাওয়া যায় নিবিড় আনন্দ। পরার্থে জীবনকে বিলিয়ে দিলেই কেবল জীবনের পূর্ণতা আসে; জীবন সার্থক, সুন্দর এবং খাটি হয়।

What’s your Reaction?
+1
0
+1
1
+1
3
+1
0
+1
1
+1
1

আপনার মতামত জানানঃ