আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে প্রতিবেদন রচনা [PDF]

play icon Listen to this article

তােমাদের বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়ােজিত অনুষ্ঠানমালার ওপর একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

অথবা, তােমার বিদ্যালয়ে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি উদ্যাপন উপলক্ষে আয়ােজিত অনুষ্ঠানমালার বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

অথবা, মনে কর, তুমি নাহিদ। তুমি বরিশাল জিলা স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র। তােমার বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়ােজিত অনুষ্ঠানের বিবরণ দিয়ে প্রধান শিক্ষক বরাবর একটি প্রতিবেদন প্রণয়ন কর।

অথবা, নন্দীগ্রাম আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে একুশে ফেব্রুয়ারি উদযাপন উপলক্ষে আয়ােজিত অনুষ্ঠানমালা সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।


২৪ এপ্রিল, ২০২
প্রধান শিক্ষক,
নড়িয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, নডিয়া, শরীয়তপুর।

বিষয় : অত্র বিদ্যালয়ে আন্তর্জাকি মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়ােজিত অনুষ্ঠানমালা প্রসঙ্গে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন।

জনাব,
সম্প্রতি বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উৎযাপন অনুষ্ঠান সম্পর্কে যে প্রতিবেদন চাওয়া হয়েছে তা নিম্নে পেশ করা হলাে-

২১ ফেব্রুয়ারি আমাদের জাতীয় জীবনের এক উল্লেখযােগ্য দিন। এদিন বাঙালি জীবনের এক দাবি আদায়ের দিন। কারণ এদিনে আমাদের প্রিয় মাতৃভাষাকে রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দানের জন্য আমাদের ভাইয়েরা বুকের তাজা রক্ত রাজপথে ঢেলে দিয়েছেন। বর্তমানে সারাবিশ্বে এটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে উদযাপিত হচ্ছে। এ দিবসকে স্মরণীয় করে রাখতে প্রতি বছর এ বিদ্যালয়ে মনােজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হয়। এ বছরও তাই হয়েছে। এ উপলক্ষে কবিতা পাঠ, প্রবন্ধ লিখন, কবিতা আবৃত্তি, দেশাত্মবােধক গাণ, রবীন্দ্র সংগীত, নজরুল গীতি, উপস্থিত বক্তৃতা ও বিতর্ক প্রতিযােগিতার আয়ােজন করা হয়। একটি বিষয়ের ওপর প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান প্রাপ্তদের জন্য সম্মানজনক পুরস্কারের ব্যবস্থা করা হয়। এছাড়া ভাষা সৈনিক ডা. গােলাম মাওলার স্মরণে যে আলােচনা অনুষ্ঠান হয় তাতে তাঁর পুত্র বিশিষ্ট চিকিৎসাবিদ ডা. গােলাম ফারুক অংশ নেন।

উল্লেখ্য আবৃত্তি অনুষ্ঠানে ডা. গােলাম মাওলার নাতনী তিশা প্রথম স্থান অধিকার করেন। অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের বই দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। পুরস্কারের মােট মূল্য ২০,০০০/= (বিশ হাজার) টাকা। এছাড়া অনুষ্ঠান উপলক্ষে বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বর্ধন ১০,৭৭৫/= (দশ হাজার সাতশত পচাত্তর) টাকা, আপ্যায়নে ৩,২২৫/= (তিন হাজার দু শত পঁচিশ) টাকা ব্যয় হয়। সর্বমােট ৪৪,০০০/= (চুয়াল্লিশ হাজার) টাকা ব্যয় হয়। এর মধ্যে ভাষাসৈনিক ডা. গােলাম মাওলার পুত্র ডা. গােলাম ফারুক অনুষ্ঠানের পুরস্কার বই এর মূল্য বাবদ ২০,০০০/= (বিশ হাজার) টাকা দান করেন এবং বাকি ২৪,০০০/= (চব্বিশ হাজার) টাকা বিদ্যালয় কোষাগার থেকে প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠান আয়ােজন কমিটি তাদের ০৮/০৪/২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠি মিটিং-এ সিদ্ধান্ত নেন পুরস্কারের সকল গ্রন্থ হতে হবে আমাদের ভাষা ও সংস্কৃতি এবং জাতীয় চেতনা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক। সে লক্ষ্যে আমাদের প্রিয় মাতৃভাষা ও সংস্কৃতি এবং জাতীয় চেনা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বই দিয়ে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করা হয়। এ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন ভা, গােলাম ফারুক, বিশেষ অতিথির আসন অলঙ্কৃত করেন স্থানীয় থানা প্রশাসক এবং অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের সুযােগ্য অধ্যক্ষ সাহেব। আমাদের জাতীয় চেতনা এবং নবজাগরণের ওপর গুরুত্ব দিয়ে বক্তারা বক্তব্য রাখেন। বিশেষ করে ডা. গােলাম ফারুক তাঁর পিতা ভাষা সৈনিক ডা. গােলাম মাওলার জবানিতে ভাষা আন্দোলন সম্পর্কে যে বস্তুনিষ্ঠ বক্তব্য প্রদান করেন তা বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের নব প্রেরণায় উজ্জিবিত করবে বলে মনে করা হচ্ছে। সবশেষে সভাপতির সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সুশৃঙ্খলভাবে আনন্দঘন পরিবেশে সম্পন্ন হয়।

মােশাররফ হােসেন ঢালী
প্রতিবেদক


প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধু, আমরা এতোক্ষন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রতিবেদনটি পড়লাম। আশা করি তোমার ভালো লেগেছে। পরিক্ষার উত্তম প্রস্তুতীর জন্য কিছু নিয়ম মেনে বা রুটিন মাফিক পড়াশুনা করা খুবই জরুরী। তুমি এটা লক্ষ্য করে থাকবে যে, সম্পর্ক যুক্ত বিষয় গুলো একই সময়ে পড়লে পড়া মুখস্ত করা সহজ হয়, এবং তা মনেও থাকে। আমাদের আজকের আলোচ্য সূচীর সাথে সম্পর্ক যুক্ত এমন কয়েকটি বিষয়-

What’s your Reaction?
+1
16
+1
30
+1
9
+1
4
+1
3
+1
4

আপনার মতামত জানানঃ